৪ বছরের সন্তান রেখে মেয়ের আত্মহত্যা, লাশ দেখে মারা গেলেন বাবাও

Jagonews24

কুষ্টিয়ার মিরপুরে শান্তনা খাতুনের (২০) ঝুলন্ত মরদেহ দেখে মারা গেছেন বাবা মোস্তফা (৪৫)। মঙ্গলবার (১২ জানুয়ারি) দুপুরে কুষ্টিয়ার মিরপুর পৌরসভার ১নং ওয়ার্ডের সুলতানপুর এলাকায় মর্মান্তিক এ ঘটনা ঘটে।

মিরপুর পৌরসভার কাউন্সিলর খোয়াব আলী জানান, সুলতানপুর এলাকার মোস্তফা তার মেয়ে শান্তনার বিয়ে দেন দৌলতপুর উপজেলা রিফায়েতপুর এলাকার মিঠুর সঙ্গে। তাদের চার বছরের একটি ছেলে রয়েছে। পারিবারিক কলহের জেরে গত দেড় বছর ধরে বাবার বাড়িতেই থাকতেন শান্তনা।

মঙ্গলবার সকালে মায়ের সঙ্গে শান্তনার বাগবিতণ্ডা হয়। পরে দুপুর ১২টার দিকে ঘরের ডাবের সঙ্গে রশিতে ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেন শান্তনা। খবর পেয়ে মোস্তফা বাড়িতে এসে মেয়ের মরদেহ ঝুলতে দেখে অসুস্থ হয়ে পড়েন। এ সময় স্থানীয়রা দ্রুত মিরপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে চিকিৎসকরা তাকে কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে রেফার্ড করেন। পরে কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে নেয়ার পথে মারা যান তিনি। একই দিন বাবা-মেয়ের মৃত্যুতে এলাকায় শোকের ছায়া নেমে আসে।

মিরপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) গোলাম মোস্তফা জানান, পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে শান্তনার মরদেহ উদ্ধার করে। কী কারণে এ ঘটনা ঘটেছে তা তাৎক্ষণিকভাবে জানা যায়নি। মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতাল মর্গে পাঠানোর প্রস্তুতি চলছে।

আল মামুন সাগর/এএইচ/এমএস

Leave a Reply

Your email address will not be published.