বাংলাদেশে সম্প্রতি চালু হওয়া ই-পাসপোর্ট সম্পর্কে যে তথ্য জেনে রাখতে পারেন

TechtunesBd


২২ শে জানুয়ারি ২০২০ থেকে

ই-পাসপোর্ট

কার্যক্রম শুরু


ইলেকট্রনিক পাসপোর্ট

(

ই-পাসপোর্ট

) চালুর সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার একি সাথে মেশিন রিডেবল

পাসপোর্টের

(

এমআরপি

) ও চালু থাকছে । বয়সের মাপকাঠিতে পাঁচ ও দশ বছর মেয়াদি

পাসপোর্ট

দেওয়া হবে। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে অনুষ্ঠিত এক অনুষ্ঠানে এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়ছে। অনলাইনেই পূরণ করা যাবে

ই-পাসপোর্টের

আবেদনপত্র। এ ছাড়া পিডিএফ ফরম্যাট ডাউনলোড করে কম্পিউটারে ফরমটি পূরণ করা যাবে।




ই-পাসপোর্ট কী?



ই-পাসপোর্ট

বা

ইলেকট্রনিক পাসপোর্ট

হলো একটি

বায়োমেট্রিক পাসপোর্ট

যাতে একটি ইলেকট্রনিক চিপ রয়েছে। ইলেকট্রনিক চিপের মধ্যে রয়েছে বায়মেট্রিক তথ্য যা পাসপোর্টধারীর পরিচয় প্রমাণের জন্যে ব্যবহার করা হয়। বর্তমানে

ই-পাসপোর্টে

ছবি,

ফিঙ্গারপ্রিন্ট

ও চোখের মনির

বায়োমেট্রিক

তথ্য সংরক্ষণ করা হয়। ই-পাসপোর্টে মোট ৩৮ ধরনের নিরাপত্তা ফিচার থাকবে।

বর্তমানে মেশিন রিডেবল

পাসপোর্টের (এমআরপি)

পাঠযোগ্য

পাসপোর্টের

মতো

ই-পাসপোর্টের

বইও একই রকমের । কিন্তু মেশিন রিডেবল

পাসপোর্টের (এমআরপি)

বইয়ে প্রথমে যে তথ্য সংবলিত দুইটি পাতা থাকে,

ই-পাসপোর্টে

তা থাকবে না। সেখানে বরং পালিমানের তৈরি একটি কার্ড ও অ্যান্টেনা থাকবে। সেই কার্ডের ভেতরে চিপ থাকবে, যেখানে

পাসপোর্টধারীর

সব তথ্য সংরক্ষিত থাকবে। ডাটাবেজে থাকবে পাসপোর্টধারীর তিন ধরণের ছবি, ১০ আঙ্গুলের ছাপ ও চোখের আইরশনি।



জমি পরিমাপ পদ্ধতিঃ সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে এখানে ক্লিক করুন

ফলে যেকোনো দেশের কর্তৃপক্ষ সহজেই পাসপোর্টধারীর সম্পর্কে সব তথ্য জানতে পারবেন।


পাসপোর্ট

অধিদপ্তরের

ই-পাসপোর্ট

প্রকল্পের পরিচালক বিগ্রেডিয়ার জেনারেল সাইদুর রহমান বিবিসি বাংলাকে বলছেন, ”এটি অত্যন্ত নিরাপত্তা সংবলিত একটি ব্যবস্থা। যে কারণে বিশ্বের বেশিরভাগ দেশ এখন

ই-পাসপোর্ট

ব্যবহার শুরু করেছে। আমরাও সেই তালিকায় যুক্ত হতে যাচ্ছি।”

যাঁদের এখন এমআরপি

পাসপোর্ট

আছে, মেয়াদ শেষ হলে তাঁদের মেশিন রিডেবল

পাসপোর্টের (এমআরপি)

পরিবর্তে

ই-পাসপোর্ট

নিতে হবে। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানিয়েছেন,

ই-পাসপোর্টে

পাতায় থাকা চিপসে

পাসপোর্টধারীর

সব তথ্য সংরক্ষিত থাকবে। এতে চোখের মণির ছবি ও আঙুলের ছাপসহ সিকিউরিটি চিহ্ন থাকবে। এই সিকিউরিটি ব্যবস্থার কারণে পরিচয় গোপন করা কঠিন হবে। যেসব দেশে

ই-পাসপোর্টের

সুবিধা রয়েছে, সেখানে যাত্রীদের ভোগান্তি পোহাতে হয় না তাই আমাদের

ই-পাসপোর্টের

সুবিধা গ্রহন করবেন তাদের ও কোন ভোগান্তি হবে না।

যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, কানাডাসহ প্রায় বিশ্বের ১১৮টি দেশে

এই ধরনের

পাসপোর্ট

চালু আছে।



ই-পাসপোর্ট সম্পর্কে জানতে এখানে ক্লিক করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.